আন্তর্জাতিক

রোববার থেকে করোনা সংক্রমণ রোধে ইংল্যান্ডে বিভিন্ন অঞ্চলে চার স্তরের বিধিনিষেধ

মহামারি করোনার দ্বিতীয়বারের মতো সংক্রমণ বাড়ার কারণে বিশ্বের অনেক দেশ আবার লকডাউনের কথা ভাবছে। ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমে করোনাভাইরাসের এই নতুন মিউটেশনটির সন্ধান পাওয়া গেছে।

অনেকেই জানেন যে ভাইরাস সবসময়ই নিজেকে পরিবর্তন করে নতুন রূপ নিতে থাকে – যাকে বলে ‘মিউটেশন’।
এবার করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় ইংল্যান্ডের বিভিন্ন অঞ্চলে রোববার থেকে চার স্তরের বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।  

দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, রোববার সকাল থেকে লন্ডন, সাউথ ইস্ট ইংল্যান্ড এবং ইস্ট অফ ইংল্যান্ড চার স্তরের নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসবে। এই বিধিনিষেধ আগামী দুই সপ্তাহ পর্যন্ত চলবে বলে জানানো হয়েছে।

কোভিড-১৯ জেনোমিক্স ইউকে (কগ) নামে একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের অধ্যাপক নিক লোম্যান বলছেন, করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে বিস্ময়কর রকমের বেশি সংখ্যায়ং মিউটেশন হয়েছে – আমরা যতটা মনে করেছিলাম তার চেয়ে অনেক বেশি। তবে এর মধ্যে কয়েকটা মিউটেশন আমাদের আগ্রহ সৃষ্টি করেছে।

বিধিনিষেধে অঞ্চলগুলোর বাসিন্দাদের অবশ্যই বাড়িতে থাকতে হবে। প্রয়োজনীয় নয়- এমন পণ্য সামগ্রী বিক্রিয়কারী দোকানপাঠ এবং ইনডোর জিম বন্ধ থাকবে। জনসাধারণকে বাসা থেকে কাজ করতে উৎসাহিত করা হয়েছে। চার স্তরের নিষেধাজ্ঞার অঞ্চলগুলোতে প্রবেশ বা বাহির হওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। উপাসনালয় খোলা থাকবে। এই বিধিনিষেধ নভেম্বরে ইংল্যান্ডে জারিকৃত লকডাউনের মতো হবে বলেছেন বরিস জনসন।

বিশ্বে গত এক বছরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে কয়েক কোটি মানুষ আর এই মহামারিতে মৃত্য হয়েছে প্রায় ১৫ লাখ মানুষের।  

Back to top button