ঢাকা ০৮:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আবারো ইউরোপের মুখোমুখি দুই প্রতিবেশি দল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৫৮:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ জুন ২০২৪ ৪৭ বার পড়া হয়েছে

আবারো ইউরোপের মুখোমুখি দুই প্রতিবেশি দল

মধ্য ইউরোপের বড় দেশ জার্মানির উত্তর সীমান্তের প্রতিবেশী দেশ ডেনমার্ক। ইউরোর গ্রুপ পর্বে ২৪টি দেশ নিয়ে খেলা শেষে আজ শুরু হচ্ছে শেষ ষোলোর লড়াই। প্রথম দিনে দুটি ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ইতালি ও সুইজারল্যান্ড এবং স্বাগতিক জার্মানি মুখোমুখি হবে প্রতিবেশী ডেনমার্কের।

ইউরো চলার সঙ্গে জার্মানির গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়া জমে উঠেছে। আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, আগামী ১৪ জুলাই ইউরোর ফাইনাল অবধি জার্মানির আকাশ মোটামুটি রৌদ্রময় থাকবে। জার্মানি গ্রুপ পর্যায়ে প্রথম দুটি ম্যাচ জিতলেও শেষ ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়। ‘এ’ গ্রুপে শেষ ম্যাচের দিন বদলি নামা নিকোলাস ফুলক্রুগের শেষ মিনিটের গোলে জার্মানি পয়েন্ট পেয়েছিল।

গ্রুপ ‘সি’তে উয়েফার ফেয়ার প্লে র‌্যাঙ্কিংয়ে শেষ পর্যন্ত একটি হলুদ কার্ড পার্থক্য তৈরি করে। ডেনমার্ক ও স্লোভেনিয়ার পয়েন্ট সমান হলেও, হলুদ কার্ডের সংখ্যায় পিছিয়ে থাকায় স্লোভেনিয়া শেষ ১৬-তে পৌঁছাতে পারেনি। এই হলুদ কার্ড পার্থক্যেই ডেনমার্ক গ্রুপ ‘সি’তে দ্বিতীয় হয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে।

বিগত বছরগুলোতে জার্মানি ফুটবল দল আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে তেমন ভালো করতে পারেনি। অনেকেই জার্মানিতে বলতে শুরু করেছেন যে জার্মান ফুটবল দলের ঐতিহ্য শেষ। যদিও এখনো সেই সময় আসেনি। জার্মানির ফুটবল দল এ পর্যন্ত ডেনমার্কের বিরুদ্ধে ২৮ ম্যাচ খেলেছে, যেখানে জার্মানি জিতেছে ১৫ ম্যাচ এবং ডেনমার্ক জিতেছে ৮ ম্যাচ।

ডেনমার্কের ফুটবল দলকে হেলাফেলা করার কোনো সুযোগ নেই। ৩২ বছর আগে ইউরোর ফাইনালে জার্মানিকে ২-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ডেনমার্ক। জার্মানির বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে ডেনমার্কের কোচ ক্যাসপার হিউলমান্দ তাঁর পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেছেন।

৫২ বছর বয়সী এই কোচ জানিয়েছেন, তাঁর দল চমক ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলবে। জার্মানির টেলিভিশনভিত্তিক অনলাইন ‘স্পোর্টসচাউ’ সংস্করণে হিউলমান্দ যোগ করেন, ‘আমাদের দেখাতে হবে আমরা কে! জার্মানিকে ব্যস্ত রাখতে কৌশলের সঙ্গে সাহস ও আস্থা নিয়েই আমরা খেলব। আমরা রক্ষণাত্মক থেকে আক্রমণাত্মক খেলা খেলব।

জার্মান ফুটবল লিগ বুন্দেসলিগায় ইউনিয়ন বার্লিন দলের কোচ ডেনিস বো সভেনসন আজ তাঁর দেশের সঙ্গে জার্মানির খেলা প্রসঙ্গে বলেন, “খেলাটি জার্মানির জন্য এত সহজ হবে না, কারণ ডেনমার্ক শেষ ১৫টি আন্তর্জাতিক ম্যাচের মধ্যে মাত্র ১টিতে হেরেছে। তাই জার্মান দলকে সতর্ক থাকা উচিত।”

১৯৯২ ইউরোয় ডেনমার্কের কাছে ২-০ গোলে হারের স্মৃতিচারণা করে তখনকার জার্মান দলের কোচ বার্টি ফোগটস কোলনের ‘রাইনিশ পোস্ট’ পত্রিকার কলামে লিখেছেন, “সেবার আমাদের অনেকেই ভেবেছিলেন, চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোনামটি আমাদের পকেটে। সে বছর আমরা স্পষ্ট ফেভারিট ছিলাম, তবুও আমরা ফাইনালে হেরে যাই। এবার জার্মান দলে ব্যক্তিগত প্রতিভা ও প্রচুর টিম স্পিরিট রয়েছে। এই দলকে নিয়ে আমি আশাবাদী। জার্মানি ফুটবল দলটি খেলার মান দেখিয়েই জিতবে।

শেষ ষোলোর এই ম্যাচ নিয়ে জার্মানির কোচ ইউলিয়ান নাগলসমান গতকাল সংবাদ সম্মেলনে সুসংবাদ দিয়েছেন। সুসংবাদটি হলো, ডেনমার্ক ম্যাচের আগে জার্মান রক্ষণের ভরসা আন্তোনিও রুডিগার সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ষোলোয় ঊরুতে চোট পেয়েছিলেন রুডিগার।

আজ শনিবার জার্মানিতে সাপ্তাহিক ছুটির দিন। স্থানীয় সময় রাত ৯টায় জার্মানি-ডেনমার্ক খেলা হবে ডর্টমুন্ড শহরের সিগন্যাল ইদুনা পার্ক স্টেডিয়ামে। স্টেডিয়ামটির ধারণক্ষমতা ৮১ হাজার। ইতিমধ্যেই ম্যাচটি নিয়ে জার্মানিতে তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। জার্মানির বিভিন্ন বড় শহরে বিশাল পর্দায় সজ্জিত পাবলিক অ্যারেনাগুলোতে সবচেয়ে বেশি সমর্থকেরা জমায়েত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। জার্মানির ‘দার স্পিগেল’ সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, শুধু বার্লিন ব্রান্ডেনবুর্গ গেটের সামনে স্থাপিত ফ্যান জোনে ৭০ হাজার মানুষের জমায়েত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

আপলোডকারীর তথ্য

আবারো ইউরোপের মুখোমুখি দুই প্রতিবেশি দল

আপডেট সময় : ০২:৫৮:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ জুন ২০২৪

মধ্য ইউরোপের বড় দেশ জার্মানির উত্তর সীমান্তের প্রতিবেশী দেশ ডেনমার্ক। ইউরোর গ্রুপ পর্বে ২৪টি দেশ নিয়ে খেলা শেষে আজ শুরু হচ্ছে শেষ ষোলোর লড়াই। প্রথম দিনে দুটি ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ইতালি ও সুইজারল্যান্ড এবং স্বাগতিক জার্মানি মুখোমুখি হবে প্রতিবেশী ডেনমার্কের।

ইউরো চলার সঙ্গে জার্মানির গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়া জমে উঠেছে। আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, আগামী ১৪ জুলাই ইউরোর ফাইনাল অবধি জার্মানির আকাশ মোটামুটি রৌদ্রময় থাকবে। জার্মানি গ্রুপ পর্যায়ে প্রথম দুটি ম্যাচ জিতলেও শেষ ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়। ‘এ’ গ্রুপে শেষ ম্যাচের দিন বদলি নামা নিকোলাস ফুলক্রুগের শেষ মিনিটের গোলে জার্মানি পয়েন্ট পেয়েছিল।

গ্রুপ ‘সি’তে উয়েফার ফেয়ার প্লে র‌্যাঙ্কিংয়ে শেষ পর্যন্ত একটি হলুদ কার্ড পার্থক্য তৈরি করে। ডেনমার্ক ও স্লোভেনিয়ার পয়েন্ট সমান হলেও, হলুদ কার্ডের সংখ্যায় পিছিয়ে থাকায় স্লোভেনিয়া শেষ ১৬-তে পৌঁছাতে পারেনি। এই হলুদ কার্ড পার্থক্যেই ডেনমার্ক গ্রুপ ‘সি’তে দ্বিতীয় হয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে।

বিগত বছরগুলোতে জার্মানি ফুটবল দল আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে তেমন ভালো করতে পারেনি। অনেকেই জার্মানিতে বলতে শুরু করেছেন যে জার্মান ফুটবল দলের ঐতিহ্য শেষ। যদিও এখনো সেই সময় আসেনি। জার্মানির ফুটবল দল এ পর্যন্ত ডেনমার্কের বিরুদ্ধে ২৮ ম্যাচ খেলেছে, যেখানে জার্মানি জিতেছে ১৫ ম্যাচ এবং ডেনমার্ক জিতেছে ৮ ম্যাচ।

ডেনমার্কের ফুটবল দলকে হেলাফেলা করার কোনো সুযোগ নেই। ৩২ বছর আগে ইউরোর ফাইনালে জার্মানিকে ২-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ডেনমার্ক। জার্মানির বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে ডেনমার্কের কোচ ক্যাসপার হিউলমান্দ তাঁর পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেছেন।

৫২ বছর বয়সী এই কোচ জানিয়েছেন, তাঁর দল চমক ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলবে। জার্মানির টেলিভিশনভিত্তিক অনলাইন ‘স্পোর্টসচাউ’ সংস্করণে হিউলমান্দ যোগ করেন, ‘আমাদের দেখাতে হবে আমরা কে! জার্মানিকে ব্যস্ত রাখতে কৌশলের সঙ্গে সাহস ও আস্থা নিয়েই আমরা খেলব। আমরা রক্ষণাত্মক থেকে আক্রমণাত্মক খেলা খেলব।

জার্মান ফুটবল লিগ বুন্দেসলিগায় ইউনিয়ন বার্লিন দলের কোচ ডেনিস বো সভেনসন আজ তাঁর দেশের সঙ্গে জার্মানির খেলা প্রসঙ্গে বলেন, “খেলাটি জার্মানির জন্য এত সহজ হবে না, কারণ ডেনমার্ক শেষ ১৫টি আন্তর্জাতিক ম্যাচের মধ্যে মাত্র ১টিতে হেরেছে। তাই জার্মান দলকে সতর্ক থাকা উচিত।”

১৯৯২ ইউরোয় ডেনমার্কের কাছে ২-০ গোলে হারের স্মৃতিচারণা করে তখনকার জার্মান দলের কোচ বার্টি ফোগটস কোলনের ‘রাইনিশ পোস্ট’ পত্রিকার কলামে লিখেছেন, “সেবার আমাদের অনেকেই ভেবেছিলেন, চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোনামটি আমাদের পকেটে। সে বছর আমরা স্পষ্ট ফেভারিট ছিলাম, তবুও আমরা ফাইনালে হেরে যাই। এবার জার্মান দলে ব্যক্তিগত প্রতিভা ও প্রচুর টিম স্পিরিট রয়েছে। এই দলকে নিয়ে আমি আশাবাদী। জার্মানি ফুটবল দলটি খেলার মান দেখিয়েই জিতবে।

শেষ ষোলোর এই ম্যাচ নিয়ে জার্মানির কোচ ইউলিয়ান নাগলসমান গতকাল সংবাদ সম্মেলনে সুসংবাদ দিয়েছেন। সুসংবাদটি হলো, ডেনমার্ক ম্যাচের আগে জার্মান রক্ষণের ভরসা আন্তোনিও রুডিগার সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ষোলোয় ঊরুতে চোট পেয়েছিলেন রুডিগার।

আজ শনিবার জার্মানিতে সাপ্তাহিক ছুটির দিন। স্থানীয় সময় রাত ৯টায় জার্মানি-ডেনমার্ক খেলা হবে ডর্টমুন্ড শহরের সিগন্যাল ইদুনা পার্ক স্টেডিয়ামে। স্টেডিয়ামটির ধারণক্ষমতা ৮১ হাজার। ইতিমধ্যেই ম্যাচটি নিয়ে জার্মানিতে তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। জার্মানির বিভিন্ন বড় শহরে বিশাল পর্দায় সজ্জিত পাবলিক অ্যারেনাগুলোতে সবচেয়ে বেশি সমর্থকেরা জমায়েত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। জার্মানির ‘দার স্পিগেল’ সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, শুধু বার্লিন ব্রান্ডেনবুর্গ গেটের সামনে স্থাপিত ফ্যান জোনে ৭০ হাজার মানুষের জমায়েত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।